মেয়েকে কেন বিয়ে করতে চেয়েছিলেন মহেশ ভাট?

বিনোদন ডেস্ক ।। বলিউডের প্রতিষ্ঠিত পরিচালক-প্রযোজক মহেশ ভাট। সুনামের পাশাপাশি প্রায়ই বিতর্কের জড়িয়েছে তার নাম। তার চলচ্চিত্রগুলো যেমন ভিন্ন তেমনি আর দশজনের চেয়ে আলাদা তার ব্যক্তিগত জীবনও।

 

‘ফিল্ম ফেয়ার’ ম্যাগাজিনের প্রচ্ছদের জন্য মেয়ে পুজা ভাটের ঠোটে চুমু খেয়ে ছবির পোজ দেয়ায় মহেশ ভাটকে নিয়ে বিতর্ক তুঙ্গে উঠে। ঘনিষ্ঠভাবে চুম্বনরত বাবা-মেয়ের এই ছবি প্রকাশিত হওয়ার পরই আলোড়ন শুরু হয়। অনেকেই বাবা-মেয়ের এ আচরণকে ‘অশ্লীলতা’ বলে দাবি করেন। ভারতের বেশ কিছু জায়গায় এ নিয়ে বিক্ষোভও হয়।এখানেই শেষ নয়। ওই ম্যাগাজিনের লিড স্টোরিটাই ছিলো তাদের নিয়ে। যেখানে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে মহেশ বলেন, ‘পুজা আমার মেয়ে না হলে আমি তাকে বিয়ে করতে চাইতাম।’

 

তবে মেয়ে আলিয়া ভাটের চোখে বাবার ইমেজটা একেবারেই আলাদা। গণমাধ্যমকে একবার তিনি বলেছিলেন, ‘তিনি আর দশজন মানুষের মতো না। স্বাভাবিকভাবেই আর দশজন সাধারণ বাবার মতোও না। তিনি সেই ধরণের বাবা নন যিনি প্রতি রোববার সন্তানদের পাশে বসে স্কুলে ভালো করার কথা বলবেন। তিনি একেবারেই বিপরীত- তিনি হয়তো আমাকে বলবেন স্কুলে ফেল করতে। ফেল করাটা খারাপ- এমন ধারণা তিনি আমার ভেতর থেকে পুরোপুরি বের করে ফেলেন।’আর বাবাকে নিয়ে পূজার বক্তব্য হলো, ‘আলিয়া, শাহীন এবং সানির চেয়ে বাবাকে আমিই ভালোভাবে জানি। কারণ, আমি তাকে ব্যর্থতার ভেতর দিয়ে যেতে দেখেছি। যেটার সাক্ষী ওরা কখনই হতে পারবে না।’মহেশ ভাটের সঙ্গে বহু নারীর নাম জড়িয়েছে বিভিন্ন সময়। শোনা যায়, কলেজজীবনে লোরিয়েন ব্রাইট নামে এক নারীর সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে ওঠে মহেশের। পরবর্তীকালে মহেশ ভাট ওই নারীর নাম পরিবর্তন করে রাখেন কিরণ। এই কিরণই মহেশের সন্তানই পূজা ভাট এবং রাহুল ভাটের মা

SHARE