১৯ ঘণ্টা কাজ করেন প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমি দিনের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে মাত্র পাঁচ ঘণ্টা ঘুমাই। আর বাকি সময় দেশ ও জনগণের জন্য কাজ করি। যতক্ষণ জীবন আছে, বাংলার মানুষের সেবা করে যাব।

 

শনিবার বিকালে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আওয়ামী লীগ আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

বাংলাদেশের উন্নয়নশীল দেশের কাতারে উত্তরণ, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ, অস্ট্রেলিয়া থেকে ‘গ্লোবাল উইমেনস লিডারশিপ অ্যাওয়ার্ড’ অর্জন এবং ভারতের নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডি-লিট ডিগ্রি পাওয়া, দেশের উন্নয়নে অনন্য ভূমিকার জন্যই প্রধানমন্ত্রীকে এ সংবর্ধনা দেয় তার দল আওয়ামী লীগ। এই সংবর্ধনা জনগণকে উৎসর্গ করেছেন প্রধানমন্ত্রী।

 

সরকারপ্রধান বলেন, একটা মানুষের তো দিনে ২৪ ঘণ্টা সময়। এই সময় থেকে আমি মাত্র ৫ ঘণ্টা নেই। এটা আমার ঘুমানোর সময়। এটা ছাড়া প্রতিটি মুহূর্ত আমি দেশের মানুষের জন্য, দেশের জনগণের উন্নয়নের জন্য কাজ করি। এর বাইরে আমার জীবনে আর কোনো কাজ নেই।

শেখ হাসিনা বলেন, আমি কোনো উৎসবে যাই না। সারাক্ষণ আমার একটাই চিন্তা, দেশের উন্নয়ন, দেশের মানুষের উন্নয়ন। আমি নিজে খোঁজ নেয়ার চেষ্টা করি- কোথায়, কোন ‍মানুষটা, কী কষ্টে আছে। তাদের সমস্যার সমাধান করা।

এ সময় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কাছ থেকে পাওয়া রাজনৈতিক শিক্ষার কথা তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী। বঙ্গকন্যা বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন অনুযায়ী- বাংলাদেশকে গড়ে তুলব। প্রতিটি গ্রামকে শহর হিসেবে গড়ে তুলব। শিক্ষাদীক্ষায় সবদিক থেকে বাংলার মানুষ উন্নত জীবন পাবে। ক্ষুধা আর হাহাকার থাকবে না। একটি মানুষও গৃহহারা থাকবে না। প্রত্যেকটা মানুষ উন্নত জীবন পাবে। সেই লক্ষ্য নিয়েই আমি কাজ করছি।

SHARE