‘আন্দোলন করেই খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা হবে’

ডেস্ক রিপোর্ট ।। আইনি প্রক্রিয়ায় সম্ভব না হলে রাজপথে আন্দোলন করেই বেগম জিয়াকে মুক্ত করা হবে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির শীর্ষ নেতারা।

শুক্রবার (২০ জুলাই) দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির সমাবেশে একথা বলেন তারা। নির্বাচন কমিশন নিরপেক্ষ নয় বলেও অভিযোগ করা হয় সমাবেশে।এদিকে, আড়াই বছর পর রাজধানীতে বিএনপি’র সমাবেশ ঘিরে দুপুর সাড়ে ১২টার পর থেকে কর্মী-সমর্থকরা সভাস্থলে আসতে শুরু করেন। খালেদা জিয়ার মুক্তি ও তার চিকিৎসার ব্যবস্থা করার দাবিতে ঢাকাসহ সারাদেশে মহানগর-জেলা-উপজেলায় একযোগে এই বিক্ষোভ সমাবেশ হচ্ছে বলে জানিয়েছে দলটি।

এদিন, সকাল থেকেই দলটির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে নেতাকর্মীদের আনাগোনা শুরু হয়। তবে পুলিশের শর্তের কারণে নেতাকর্মীরা সমাবেশে আসতে শুরু করেন দুপুরে জুমার নামাজের পর।

দুপুর আড়াইটার দিকে প্রখর রোদের মধ্যেই নেতাকর্মীরা ফকিরাপুল থেকে কাকরাইলের নাইটিঙ্গেল মোড় পর্যন্ত সড়কের দুই ধারে অবস্থান নেন। তাদের হাতে দেখা যায় খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের ছবি সংবলিত ফেস্টুন ও ব্যানার। খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে স্লোগান দিতেও শোনা যায় নেতাকর্মীদের।

বিকেল পৌনে তিনটায় দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে ট্রাকের ওপর বানানো অস্থায়ী মঞ্চ থেকে সমাবেশের কার্যক্রম শুরু হয়। সমাবেশ শুরুর পরপরই শুরু হয় গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি। সমাবেশ ঘিরে নয়াপল্টন সড়কের বিভিন্ন স্থানে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

 

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সভাপতিত্বে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য, ভাইস চেয়ারম্যান, উপদেষ্টা কাউন্সিলসহ কেন্দ্রীয় ও অঙ্গসংগঠনের নেতারা সমাবেশে উপস্থিত হয়েছেন।

সবশেষ ২০১৬ সালের ৫ জানুয়ারি নয়াপল্টনে সমাবেশ করে বিএনপি। সেখানে প্রধান অতিথি ছিলেন দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া।

SHARE