সাভারে নারী পুলিশ কর্মকর্তার ঝুলন্ত লাশ

২৫ নভেম্বর ২০১৭,

সাভার মডেল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) তাহমিনা আক্তারের (৩২) লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। আজ শনিবার রাত সাড়ে আটটার দিকে থানা কমপ্লেক্সের ভেতরে অফিসার্স কোয়ার্টারের ভেতরে নিজ বাসা থেকে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত থাকা অবস্থায় পুলিশ তাঁর লাশ উদ্ধার করে। প্রাথমিকভাবে ঘটনাটি আত্মহত্যা বলে পুলিশ ধারণা করছে।

তাহমিনার বাড়ি ময়মনসিংহের মুক্তাগাছা উপজেলার জয়দা গ্রামে। তাঁর বাবার নাম আবদুস সালাম। তিনি মাতৃত্বকালীন ছুটিতে ছিলেন।

তাহমিনার স্বামী মোবারক হোসেন একটি আবাসন কোম্পানির কর্মকর্তা। তিনি বলেন, তাঁদের পাঁচ মাসের মেয়ে কয়েক দিন ধরেই অসুস্থ। তাহমিনাও কয়েক দিন ধরে অসুস্থ ছিলেন। এর মধ্যে মাতৃত্বকালীন ছুটি প্রায় শেষ হয়ে আসছিল। কর্মস্থলে যোগদানের পর শিশুটিকে কে দেখবে, এ নিয়ে তিনি চিন্তিত ছিলেন। মানসিক অশান্তি থেকে তাহমিনা আত্মহত্যা করে থাকতে পারেন বলে তিনি ধারণা করছেন।

মোবারক হোসেন বলেন, রাত পৌনে আটটার দিকে তাহমিনা শোবার ঘরে শুয়ে ছিলেন। বাচ্চাটাও তাঁর কাছে শুয়ে ছিল। মোবারক মশারি টানিয়ে দেন। কিছু সময় পর তিনি ওই কক্ষে গিয়ে দেখেন, তাহমিনা জেগে রয়েছেন। পরে মোবারক তাঁদের ছয় বছরের বাচ্চাকে ভাত খাওয়াতে যান। এরপর শোবার ঘরে ঢুকতে গিয়ে দেখেন, দরজা ভেতর থেকে বন্ধ। সাড়াশব্দ না পেয়ে তিনি প্রতিবেশী ও পুলিশকে বিষয়টি জানান। পরে পুলিশ গিয়ে দরজা ভেঙে ভেতরে ঢুকে দেখেন, তাহমিনার লাশ ফ্যানের সঙ্গে ঝুলছে।

পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনাস্থল থেকে একটি সুইসাইড নোট উদ্ধার করা হয়েছে। তাতে লেখা রয়েছে ‘আমার মৃত্যুর জন্য কেউ দায়ী নয়’।

সাভার মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মহসিনুল কাদের বলেন, প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে এটা আত্মহত্যা। তবে কী কারণে তিনি আত্মহত্যা করেছেন, তা এই মুহূর্তে নিশ্চিত নয়।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here