রিয়াল মাদ্রিদ থেকে সব বিক্রি করে চলে গেলেন রোনালদো

বাংলানিউজ,ডেস্ক রিপোর্ট।।  পর্তুগিজ সংবাদ মাধ্যম করিও ডো মানহা বলছে, সেই বাড়িটাও বিক্রি করে দিয়েছেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। তাতে স্পেনের সঙ্গে শেষ সম্পর্কটুকুও ছিন্ন হয়ে গেল সিআর সেভেনের।শেষ চিহ্ন বলতে কেবল টিকে ছিল ৪৫ লাখ দামের বিলাসবহুল বাড়িটিও।

বাড়ি বিক্রির সময় আরও একবার সেটার নমুনা মিলল। ম্যানচেস্টারের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কোনো এক মালিক বাড়িটি কিনে নিয়েছেন ২ কোটি ইউরোতে। তাতে লাভ হয়েছে প্রায় ৪গুণ! ২০০৯ সালে ম্যানইউ থেকে রিয়াল মাদ্রিদে এসে এই বাড়িটি কিনেছিলেন তখনকার বিশ্বের সবচেয়ে দামি ফুটবলার। তবে রোনালদোর বাড়ি বিক্রির পেছনে অন্যতম কারণ হিসেবে স্পেন ট্যাক্স কর্তৃপক্ষের ঝামেলার সংযুক্তিও আছে বলে মনে করছে করিও ডো মানহা।

একটা সময় মাথার ভেতর টিউমার হয়ে থাকা ট্যাক্সের জরিমানা দিতে এই বাড়ি বিক্রি করা হচ্ছে বলে ধারণা সংবাদ মাধ্যমটির। একইভাবে রোনালদোর লটবহর থেকে কমছে গাড়ির সংখ্যাও। মোট ২২টি বিলাসবহুল গাড়ীর মালিক পর্তুগিজ মহাতারকা। মাতৃভূমি পর্তুগাল ও নতুন আবাস তুরিনে কিছু গাড়ি রেখে বাকিগুলো বিক্রি করে দিচ্ছেন সিআর সেভেন। স্পেনের সঙ্গে একবারেই সম্পর্ক শেষ যাচ্ছে এমনটাও আবার বলা যাচ্ছে না। বিলাসবহুল হোটেল নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান পেস্টানা গ্রুপের সঙ্গে যৌথভাবে মাদ্রিদে একটি হোটেল নির্মাণ করার কথা আছে রোনালদোর।

বান্ধবী জর্জিনা রদ্রিগেজ ও চার সন্তানেরও জন্ম এই স্পেনে। তাই সঙ্গী ও সন্তানদের কথা চিন্তা করে হয়ত ভবিষ্যতে এখানেই ফিরতে পারেন রিয়ালকে চার চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জেতানো ক্রিস্টিয়ানো।